ঢাকা, ৮ মার্চ সোমবার, ২০২১ || ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭

এতো কম রানেও কষ্ট করে জিতল বাংলাদেশ

ক্যাটাগরি : খেলা প্রকাশিত: ১১২২ঘণ্টা পূর্বে   ৮২


এতো কম রানেও কষ্ট করে জিতল বাংলাদেশ

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড় নতুন ফলে চিনতে পারেননি কেউই। তাই বলে এক ম্যাচে ৬ জনের ওয়ানডে অভিষেক ঘটিয়ে শুরু করা ওয়েস্ট ইন্ডিজের  ১২২ রান তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশ ৬ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে।

বোলিং নিয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগ নেই। কিন্তু ব্যাটিং নিয়ে প্রশ্নটা আরও বাড়ল। শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে আজ জিতেছে বাংলাদেশ। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাটিং মন জয় করতে পারেনি।

১০ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নেমে এই জয়টা অবশ্যই সন্তুষ্টির। কিন্তু ব্যাটিংয়ের খামতিটা স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

দেখেশুনে খেলে ৪৭ রানের জুটি গড়েছিলেন দুই ওপেনার লিটন দাস ও তামিম ইকবাল। লিটনের ব্যাটিং স্বাভাবিক ছিল না।  মনে হচ্ছিলো কষ্ট করে রান করতে হচ্ছে না টেষ্ট খেলতে নেমেছেন। শুধু লিটন এমনটা করেছেন তা নয়। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালেরও একই অবস্থা ছিলো। অনেকে মনে করছেন রান বেশি হলে কি করতেন তারা। অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াররা যে বল বেশি খেলেননি তা নয়। 

লিটন ৩৭ বলে ১৪ রানে ফিরেছেন আকিল হোসেনের দারুণ এক ডেলিভারিতে। পুরোনো রোগের মতো এর দুই ওভার পরই মিড উইকেটে ক্যাচ অনুশীলন করিয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত (১)। হাতে ক্যাচ তুলে দেয়ার প্রাকটিস করিয়েছেন তিনি। এমন নয় যে প্রথম কিংবা দ্বিতীয় বলেই জড়তার জন্য ক্যাচটা উঠে গেছে। ৮ বল খেলা হয়ে গিয়েছিল শান্তর। 

ক্যারিবীয় অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদের বলে তামিমের ৪৪ রানে স্টাম্পিং মেনে নিতেও কষ্ট হওয়ার কথা ভক্তদের। উইকেটে জমে গিয়েছিলেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। ফিফটিটা তুলে নিতেই পারতেন অনায়াসেই। স্পিনে ব্যাটসম্যানদের এই প্রবণতা কিংবা ভুল, যা-ই বলুন না কেন, এসব নতুন কিছু নয়। 

সাকিব আল হাসান ফিরেছেন চিরাচরিত ‘অভ্যাস’-এর বশবর্তী হয়ে। চল্লিশের বেশি বল খেলা হয়ে গিয়েছিল সাকিবের। কুয়াশাচ্ছন্ন কন্ডিশনে চোখ সয়ে আসার কথা। 

রাউন্ড দ্য উইকেট থেকে অ্যাঙ্গেলে সাকিবকে বেশ ভোগাচ্ছিলেন আকিল। তাঁকে জোর করে কাট করতে গিয়ে বলের বাঁকের কাছে হেরে নিজের উইকেটটা দিয়েছেন সাকিব।

 ১২২ রান তাড়া করতে নেমে ৩৩.৫ ওভার খেলেছে বাংলাদেশ। ওভারে গড় রানরেট ৩.৬৯। বর্তমান ক্রিকেটের হালচাল বিচারে এই ব্যাটিংকে মোটেও স্বাভাবিক বলা যায় না। কুয়াশাচ্ছন্ন কন্ডিশন, দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামার জড়তা, এসব বিষয় হয়তো জেঁকে বসেছিল। 

 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১২২ রান তুলেছে ৩২.২ ওভারে। এর মধ্যে ১৩৩ বল ‘ডট’ খেলেছে সফরকারী দল। বাংলাদেশ ডটসংখ্যাও বেশি ১৩৯—অথচ শেরেবাংলার বাইশ গজ বাংলাদেশ ক্রিকেটের ‘ঘর’, যেখানে ব্যাটিংটা স্বচ্ছন্দে করার কথা তামিমদের।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন: