ঢাকা, ২৪ অক্টোবর রবিবার, ২০২১ || ৮ কার্তিক ১৪২৮
 নিউজ আপডেট:

মীরসরাইয়ের আওয়ামী রাজনীতিতে জোরারগঞ্জ

ক্যাটাগরি : বাংলাদেশ প্রকাশিত: ৯১৪২ঘণ্টা পূর্বে


মীরসরাইয়ের আওয়ামী রাজনীতিতে জোরারগঞ্জ

মোহাম্মদ হাসানঃ চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলার ৩নং জোরারগঞ্জ ইউনিয়ন দীর্ঘ কাল থেকে আওয়ামী রাজনীতিতে বেশ আলোচিত। সময়ে সময়ে ব্যাক্তি কেন্দ্রিক রাজনীতির দোলাচলে সরগরম হয়ে উঠত এ জনপদ। কখনো প্রয়াত দ্বীন এম রানা, কখনো ফারুক আহাম্মদ চৌধুরী প্রকাশ দ্বৈত্যরাজ, হাল সময়ের নাসির উদ্দিন দিদার, আনোয়ার হোসেন ইমন, করিম মাষ্টার অন্যতম।


জোরারগঞ্জে আওয়ামী লীগ রাজনীতিতে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখে গেছেন প্রফুল্ল কুমার দেওয়াঞ্জি প্রকাশ কালু ডাঃ। আজ অপরাজনীতি আত্মীয়করণ এর ফলে ঐ পরিবারের কাউকে আওয়ামী লীগের উপজেলা বা অন্যকোন স্থানে রাখা হয়নি। 


প্রসঙ্গ ক্রমে এককজন আওয়ামী লীগ নেতা আক্ষেপ করে বলেছেন, ঐ তো সেদিন বিএনপি নেতা প্রয়াত কামাল উদ্দিন বালার ইউপি নির্বাচনে পাবলিসিটি করতে দেখা আনোয়ার হোসেন ইমন আজ উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রথম সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি বলেন, তৎকালীন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিনের নজরে পড়ে আনোয়ার হোসেন ইমন তারপর তিনি ধীরে ধীরে ছাত্রলীগ রাজনীতিতে টেনে আনেন।আর ছাত্রলীগ রাজনীতিতে এসে পরিচয় হয় উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সভাপতি প্রয়াত মোঃ আলী সাহেবের সাথে। তখন আলী সাহেবের জোরারগঞ্জে যাওয়া আসা হতো আজকের উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর। সে সুবাধে পরিচয় পর্ন অতঃপর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহঃপ্রচার সম্পাদক আজকের সাংগঠনিক সম্পাদক। গতবারের এ ন্যায় এবারও ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন চাইবেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। 


জোরারগঞ্জে বর্তমানে আরেক আলোচিত নাসির উদ্দিন দিদার। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি পরবর্তীতে দীর্ঘ বছর দলীয় পদ-পদবী বঞ্চিত হলেও এবারের উপজেলা আওয়ামী লীগে সাংস্কৃতিক সম্পাদক এর দায়িত্ব পেয়েছেন। এলাকায় বেশ দান খয়রাত, নেতাদের ভোজন আপ্যায়নে কার্পণ্য করছেন না। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনিও দলীয় মনোনয়ন চাইবেন এমনটি লোকমুখে প্রচার হচ্ছে। 


ইউনিয়নের দক্ষিণ অঞ্চলে শিক্ষা ও দাতব্য প্রতিষ্ঠান গড়ে সমাজকর্মে বেশ আলোচিত করিম মাষ্টার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। বিগত বেশ কয়েক বছর যাবত জনহিতকর কাজ করে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতে পেরে তিনিও সামনের ইউপি চেয়ারম্যান এর জন্য দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী।


উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ আহ্বায়ক কমিটির সদস্য নুর মোহাম্মদ সেলিম বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ দপ্তর সম্পাদক। চট্টগ্রামে তৈরী পোশাক শিল্পের স্টকলট সহ বিবিধ ব্যাবসায় অনেকটা সফল তিনিও ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন চাইতে পারেন বলে অনেকের মন্তব্য। ইতিপূর্বে বিভিন্ন সময়ে তার এমন বাসনার জানান দেয়া দেওয়ালে সাঁটানো পোষ্টার তাই জানান দেয়।


সর্বপরি একদা জোরারগঞ্জে আওয়ামী রাজনীতির প্রানশক্তি বলা হতো বর্তমান চেয়ারম্যান মকসুদ আহাম্মদ চৌধুরী। দুই যুগেরও বেশি সময় আগে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। টানা কয়েকবারের চেয়ারম্যান। গেলো বছর হজ্জব্রত পালন করে আসছেন। নিজে কিছুটা ক্লান্তি নিয়ে অবসরে আসতে চান। শুভাকাঙ্ক্ষীরা তাঁকে না পেলে তাঁর ছেলে সাবেক ছাত্রনেতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মানারাত চৌধুরী বাবুকে নিয়ে আসতে চান।


এ ইউনিয়নের আরেক ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কালু কুমার দে আজ আওয়ামী রাজনীতিতে চরম অবহেলা অপ্রয়োজনীয় ব্যাক্তিতে রুপান্তরিত হয়ে অন্তর্জ্বালায় ভূগছেন। ঠাঁই হয়নি কোথাও আরেক ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা আশরাফ উদ্দিন ভূঁইয়ায়।

১৫ নং ওয়াহেদপুর ইউনিয়ন থেকে এসে জোরারগঞ্জ নিবাস গড়া আওয়ামী লীগের আরেক নিবেদিত কর্মী যার গান নির্বাচনী ও আন্দোলনের মঞ্চ ভেদ করে ছড়িয়ে পড়তো গ্রাম গ্রামাঞ্চলে। সিরাজ বাঙালী তিনিও আজ আওয়ামী রাজনীতিতে মূল্যহীন।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
আরও সংবাদ পড়ুন
সিরাজগঞ্জে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতি নিধি ঃ সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় অভিযান চালিয়ে দু’টি রিভলবার, গুলি ও দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১২ সদস্যরা। এ সময় ছিনতাই হওয়া একটি মাইক্রোবাসও উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে ও বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ি মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ডাকাত সদস্যরা হলো, সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার শৈলজানা গ্রামের মৃত মোকছেদ আলীর ছেলে মো. শফিকুল আলম তুহিন (৪৪), বগুড়া জেলা সদরের ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া এলাকার বেল্লাল হোসেন (৫৮), মৃত লব ফকিরের ছেলে বুধা ফকির (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত সেলিম প্রামাণিকের ছেলে মো. সোহাগ (২৯), বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার আটকোবিয়া গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে নান্নু মণ্ডল (৩২) এবং গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বেলাশী সরকার বাড়ী এলাকার ইসমাইল সরকার (৫৯)। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত রোববার (১৭ অক্টোবর) মেয়ে দেখার নাম করে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া নিয়ে বগুড়া থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় একদল ডাকাত। এরপর থেকে মাইক্রোবাসের চালক আমিরুলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হন গাড়ির মালিক। পরে তিনি র‌্যাব সদর দপ্তরের সহযোগিতা চান। এরপর র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে যে চালক আমিরুলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ওই গাড়ি দিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এরপর মঙ্গলবার রাতে শহরের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত চক্রের মূলহোতাসহ পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ী মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে আরও একজনকে আটক করা হয়। এ দু’টি অভিযানে আটক ডাকাতদের কাছ থেকে দু’টি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। সেই সঙ্গে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার আরও জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে এ ডাকাত চক্রটির দীর্ঘদিন ধরে পরিবহন ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে ডাকাতি করে আসছিল। তারা গাড়ি ছিনতাইয়ের পর এর নম্বর প্লেট, জিপিএস ট্র্যাকার ও গাড়ির রঙ পরিবর্তনের মাধ্যমে দখলে নেয়। পরে ওই গাড়ি নিয়ে ডাকাতি করে থাকে।
Search
সিরাজগঞ্জে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক    মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতি নিধি ঃ   সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় অভিযান চালিয়ে দু’টি রিভলবার, গুলি ও দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১২ সদস্যরা। এ সময় ছিনতাই হওয়া একটি মাইক্রোবাসও উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে ও বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ি মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ডাকাত সদস্যরা হলো, সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার শৈলজানা গ্রামের মৃত মোকছেদ আলীর ছেলে মো. শফিকুল আলম তুহিন (৪৪), বগুড়া জেলা সদরের ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া এলাকার বেল্লাল হোসেন (৫৮), মৃত লব ফকিরের ছেলে বুধা ফকির (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত সেলিম প্রামাণিকের ছেলে মো. সোহাগ (২৯), বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার আটকোবিয়া গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে নান্নু মণ্ডল (৩২) এবং গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বেলাশী সরকার বাড়ী এলাকার ইসমাইল সরকার (৫৯)। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত রোববার (১৭ অক্টোবর) মেয়ে দেখার নাম করে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া নিয়ে বগুড়া থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় একদল ডাকাত। এরপর থেকে মাইক্রোবাসের চালক আমিরুলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হন গাড়ির মালিক। পরে তিনি র‌্যাব সদর দপ্তরের সহযোগিতা চান। এরপর র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে যে চালক আমিরুলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ওই গাড়ি দিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এরপর মঙ্গলবার রাতে শহরের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত চক্রের মূলহোতাসহ পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ী মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে আরও একজনকে আটক করা হয়। এ দু’টি অভিযানে আটক ডাকাতদের কাছ থেকে দু’টি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। সেই সঙ্গে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার আরও জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে এ ডাকাত চক্রটির দীর্ঘদিন ধরে পরিবহন ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে ডাকাতি করে আসছিল। তারা গাড়ি ছিনতাইয়ের পর এর নম্বর প্লেট, জিপিএস ট্র্যাকার ও গাড়ির রঙ পরিবর্তনের মাধ্যমে দখলে নেয়। পরে ওই গাড়ি নিয়ে ডাকাতি করে থাকে।

সিরাজগঞ্জে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতি নিধি ঃ সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় অভিযান চালিয়ে দু’টি রিভলবার, গুলি ও দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১২ সদস্যরা। এ সময় ছিনতাই হওয়া একটি মাইক্রোবাসও উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে ও বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ি মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ডাকাত সদস্যরা হলো, সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার শৈলজানা গ্রামের মৃত মোকছেদ আলীর ছেলে মো. শফিকুল আলম তুহিন (৪৪), বগুড়া জেলা সদরের ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া এলাকার বেল্লাল হোসেন (৫৮), মৃত লব ফকিরের ছেলে বুধা ফকির (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত সেলিম প্রামাণিকের ছেলে মো. সোহাগ (২৯), বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার আটকোবিয়া গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে নান্নু মণ্ডল (৩২) এবং গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বেলাশী সরকার বাড়ী এলাকার ইসমাইল সরকার (৫৯)। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত রোববার (১৭ অক্টোবর) মেয়ে দেখার নাম করে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া নিয়ে বগুড়া থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় একদল ডাকাত। এরপর থেকে মাইক্রোবাসের চালক আমিরুলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হন গাড়ির মালিক। পরে তিনি র‌্যাব সদর দপ্তরের সহযোগিতা চান। এরপর র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে যে চালক আমিরুলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ওই গাড়ি দিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এরপর মঙ্গলবার রাতে শহরের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত চক্রের মূলহোতাসহ পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ী মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে আরও একজনকে আটক করা হয়। এ দু’টি অভিযানে আটক ডাকাতদের কাছ থেকে দু’টি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। সেই সঙ্গে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার আরও জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে এ ডাকাত চক্রটির দীর্ঘদিন ধরে পরিবহন ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে ডাকাতি করে আসছিল। তারা গাড়ি ছিনতাইয়ের পর এর নম্বর প্লেট, জিপিএস ট্র্যাকার ও গাড়ির রঙ পরিবর্তনের মাধ্যমে দখলে নেয়। পরে ওই গাড়ি নিয়ে ডাকাতি করে থাকে।


সারাদেশের সংবাদ