ঢাকা, ২ আগস্ট সোমবার, ২০২১ || ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮
 নিউজ আপডেট:

মেয়র কাদের মির্জার বিরুদ্ধে মানহানি মামলার আবেদনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ 

ক্যাটাগরি : রাজনীতি প্রকাশিত: ৪৬০৮ঘণ্টা পূর্বে


মেয়র কাদের মির্জার বিরুদ্ধে মানহানি মামলার আবেদনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ 

মাহবুবুর রহমান -নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে মানহানি মামলার আবেদনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বিকেল ৫টায় বসুরহাট বাজারে এই বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খানের সভাপতিত্বে ও পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আজম পাশা চৌধুরী রুমেলের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন,বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী প্রমূখ।

প্রধান অতিথির মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেন, অতীতেও আমার বিরুদ্ধে অসংখ্য মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছিল। এবার সত্য কথা বলায় দলের কিছু দুষ্কৃতিকারীর গায়ে লেগেছে। তিনি আরো বলেন, আমি অপরাজনীতির বিরুদ্ধে কথা বলেছি। এতে কেউ রাগ হলে বা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিলে তাতে আমার কিছু বলার নেই। তবে যতো বাধায় আসুক সত্য বচনে একটুও পিছপা হব না।

অন্যদিকে সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তার ব্যক্তিগত মতামত তুলে ধরেন।

এর আগে, বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে নোয়াখালীর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ২নং আমলি আদালতে এই মানহানি মামলার আবেদন করা হয়। মামলার বাদী ১০ নং অশ্বদিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং ইউপি সদস্য মো.রিয়াজ উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি।

মামলার আবেদনে বাদী উল্লেখ করেন, আবদুল কাদের মির্জার বক্তব্যের কারণে ভাঙ্গা উপজেলার এমপি নিক্সন চৌধুরী নোয়াখালী জেলা সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করিয়াছেন। শুধু তাই নয়। তিনি তাহার রাজনৈতিক বক্তব্য প্রদানকালে মোয়াজ্জেন আযান দিলে তখন দিনি বলিয়াছেন যে, আযান ১০ মিনিট পরে দিলেও চলত। ইহাতে আমি একজন ধর্মপ্রাণ মুসলিম হিসেবে মনে করি যে,তিনি এই মন্তব্য করে পুরো ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের উপর তাহাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে। তাহার এই একাধিক কুরুচিপূর্ণ এবং মানহানিকর বক্তব্য প্রদান করায় স্থানীয় সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী এবং স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যানের মানহানি হওয়ায় এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে হওয়ায় আমি বাংলাদেশ যুবলীগের একজন নিবেদিত কর্মি হিসেবে আমার হৃদয়ে আঘাত হওয়ায় তাঁহার বিরুদ্ধে অত্র মামলা দায়ের করিলাম।
তবে আদালত এখনো কোনো আদেশ দেননি।
 
 নোয়াখালী প্রতিনিধি

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
Search

সারাদেশের সংবাদ