ঢাকা, ২৩ জুন বুধবার, ২০২১ || ৯ আষাঢ় ১৪২৮
 নিউজ আপডেট:

ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ফয়েজের উপর হামলায় সিপিবি’র গোপন শাস্তি ও রোডম্যাপ

ক্যাটাগরি : রাজনীতি প্রকাশিত: ৯৭৪ঘণ্টা পূর্বে


ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ফয়েজের উপর হামলায় সিপিবি’র গোপন শাস্তি ও রোডম্যাপ

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ছাত্রনেতা ফয়েজ উল্লাহর উপর সন্ত্রাসী হামলার দায়ে সিপিবি কেন্দ্রীয় নেত্রী জলি তালুকদারের সদস্যপদ ২ মাসের জন্য স্থগিত করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)। যা এতোদিন ছাত্র ইউনিয়ন নেতা কর্মীদের কাছে গোপন রাখা হয়েছিলো বলে জানা গেছে। এরই মধ্যে সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক শাহ আলমের সাক্ষরিত ছাত্র গণসংগঠন বিষয়ে করনীয় বিষয়ক নির্দেশনার  কিছু ছবি পেয়েছে সবারকথা টিম। সেখানে জলি তালুকদারকে ২রা মে থেকে ২ মাসের সদস্যপদ স্থগিতের সিদ্ধান্তে কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

নির্দেশনায় ছাত্র গণসংগঠন বিষয়ে করনীয় অংশে উল্লেখ করা হয়েছে, সম্মেলন পরবর্তী উদ্ভুদ পরিস্থিতিতে জরুরী সম্মেলন বাস্তবায়ন না করায় ছাত্র ইউনিয়নের বর্তমান কমিটিতে সিপিবি’র ১৪ জন সদস্যকে সদস্যপদ স্থগিত ও কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বহিষ্কার করা হতে পারে এমন কঠিন সিদ্ধান্তের মতো নির্দেশনা উল্লেখ আছে ৬ পৃষ্ঠার বড় সেই নির্দেশনায়। 

নির্দেশনার শুরুতে বলা হয়, গত ৪ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখে আনুমানিক রাত সাড়ে ৮ ঘটিকা থেকে রাত ৯ ঘটিকার মধ্যে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ফয়েজ উল্লাহর উপর হামলা ঘটনা ঘটে। আক্রমনের ঘটনার কোন সাক্ষ্য প্রমান পাওয়া যায়নি। 

নির্দেশনায় আরও উল্লেখ করা হয়েছে, তদন্ত কমিটির কাছে প্রদত্ত কারো কারো সাক্ষ্যে জানা গেছে,ঘটনার সময় জলি তালুকদার পুরানা পল্টন এলাকায় উপস্থিত ছিলেন এবং ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ কে ডেকে নিয়ে যান। এর কিছুক্ষন পরে ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি আহত অবস্থায় ফিরে আসেন এবং বলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, শান্তিনগর শাখার সদস্য হযরত আলীর সহযোগিতায় জলি তালুকদার আক্রমন করেন।

নির্দেশনার বলা হয়, সেসময় থাকা কেউ কেউ কমরেড জলি তালুকদার ছাত্র নেতা ফয়েজউল্লাহকে ডেকে নিয়ে যাচ্ছেন এমন ঘটনার ঘটে নাই বলে অনেকে তদ্ন্ত কমিটির কাছে সাক্ষ্য দিয়েছে। তবে কে কারা এই সাক্ষ্য দিয়েছেন এই বিষয়ে নির্দেশনায় কারও নাম উল্লেখ নেই। 

এর আগে ঘটনার পর পরই জলি তালুকদার পুরো ঘটনাটি অস্বীকার করেন এবং বলেন এমন কোন ঘটনা ঘটে নি বলে জানান।

গত ৪ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখ রাতে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতির উপর হামলার প্রতিবাদে ও সুষ্ঠু তদন্ত এবং হামলাকারী সন্ত্রাসীর বিচারের দাবিতে  পুরানা পল্টনের মুক্তি ভবনে (বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি অফিসে) অবস্থান নেন ছাত্র ইউনিয়ন নেতা কর্মীরা।

গত ৮ এপ্রিল ২০২১ তারিখে সিপিবির (বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি) প্রেসিডিয়াম সভায় এ ঘটনার নিন্দা জানানো হয় ও এই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ৪ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় এবং ১০ দিনের মাঝে তদন্ত কমিটিকে রিপোর্ট  দেয়ার জন্য বলা হয়। সন্ত্রাসী হামলার তদন্ত সুবিধার্থে  দায়ে সিপিবি নেতা জলি তালুকদারের সদস্য পদ স্থগিত রাখা হয়।

তদন্ত কমিটি ফলাফল অনুসন্ধান ও পরিস্থিতি বিবেচনা করে, গত ২রা মে প্রেসিডিয়াম সভার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ছাত্রনেতা ফয়েজ উল্লাহর উপর সন্ত্রাসী হামলার দায়ে জলি তালুকদারের  সদস্য পদ ২ মাসের জন্য স্থগিত করে সিপিবি।

নাম প্রকাশে অনিচছুক এক ছাত্র নেতা বলেন, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে সিপিবি থেকে আমাদের কোন চিঠি দেয়া হয় নি বা জানানো হয় নি। 

তিনি আরও বলেন, আমরা বিশ্বাস করি বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কোন অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয় না। আমরা এই সন্ত্রাসী হামলায় জড়িত জলি তালুকদারকে সিপিবি থেকে  স্হায়ী বহিষ্কার দাবি জানিয়ে আসছি। তবে তিনি যদি অনুতপ্ত বোধ করে থাকেন তাহলে তা আমরা পুনরায় বিবেচনা করবো।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে  কোন চিঠি পাই নি বা আমাদের জানানো হয় নি। ঈদের ৩য় দিন কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহন করবো।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন: