ঢাকা, ২৬ অক্টোবর মঙ্গলবার, ২০২১ || ১০ কার্তিক ১৪২৮
 নিউজ আপডেট:

চাঁদপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের প্রশিক্ষার্থে নতুন গাড়ি শুভ উদ্বোধন

ক্যাটাগরি : শিক্ষা প্রকাশিত: ৭৯২৯ঘণ্টা পূর্বে


চাঁদপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের প্রশিক্ষার্থে নতুন গাড়ি শুভ উদ্বোধন

আলামগীর বাবুঃচাঁদপুর প্রতিনিধিঃ  চাঁদপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে SEIP প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত ট্রান্স – ২ ব্যাচ ১.২ এর প্রদত্ত নতুন গাড়ির প্রশিক্ষণার্থীদের ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে SEIP প্রকল্প কর্তৃক প্রদত্ত নতুন গাড়ির শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।


২৯ নভেম্বর (রবিবার) সকাল ১১টায় চাঁদপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান।অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা।প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী দেশের সকল বেকার  বেকারত্ব কমিয়ে আনার লক্ষ্যে আজ প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে গাড়ি বিতরণ সত্যিই প্রশংসনীয়।তিনি বলেন, ড্রাইভারি পেশা একটি অত্যন্ত সন্মানের গুরুত্বপূর্ণ। পাশাপাশি ঝুঁকিপূর্ণ পেশা,একজন দক্ষ ড্রাইভারের বিকল্প নেই। ড্রাইভারী পেশার কিছু গুরুত্বপূর্ণ দায় দায়িত্ব আছে এটির মধ্যে প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে নিজে বাঁচুন এবং অন্যকেও বাঁচান।

এসময় শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন, টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের প্রশিক্ষক জেসমিন।চাঁদপুর টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মোঃ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ছাত্র ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন। SEIP প্রকল্পের আওতায় ৪০ জন করে ছাত্র-ছাত্রীকে আমরা প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকি।এই প্রশিক্ষণের জন্য  ছাত্র-ছাত্রীদের থেকে কোনো টাকা-পয়সা নেওয়া হয়না। তবে সরকারিভাবে প্রশিক্ষণের জন্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে প্রতিদিন একশত টাকা করে দিয়ে থাকি আমরা প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা পৌছে দেই। তোমরা এখানে নিয়মিত ক্লাস করবে মনোযোগ সহকারে প্রশিক্ষণ নেবে তোমাদের ড্রাইভিং লাইসেন্স সরকারি ভাবে দেওয়া হবে। এখান থেকে যারা প্রশিক্ষণ নিয়ে উত্তীর্ণ হবে তোমরা সবাই যে কোন প্রতিষ্ঠানে এবং দেশের বাহিরে গিয়ে কাজ করার সুযোগ আছে। আমরা চাই দেশের বেকারত্ব দূর হোক।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে আরও বক্তব্য রাখেন, ৩ নং কল্যাণপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি, আঃ আজিজ খান দুদু, টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজর প্রশিক্ষক মোঃ আল আমিন এবং ড্রাইভিং কোর্সের একজন প্রশিক্ষনার্থী জাকারিয়া।অনুষ্ঠান শেষে চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মোঃ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর হাতে প্রশিক্ষনার্থীদের জন্য দেয়া নতুন গাড়িটির চাবি বুঝিয়ে দেন।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
Search
গাইবান্ধায় কিশোরী লিমা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন  গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ধর্মপুর পিএন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর মেধাবি ছাত্রী লিমা আক্তার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে  হত্যাকান্ডের পর থেকেই দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল,সড়ক অবরোধ সহ মানববন্ধন  করে আসছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।    বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে  গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোডে ঘন্টাব্যাপী এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন, নারী মুক্তি আন্দোলনের সদস্য সচিব নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী, শোভাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আবদুল্লাহ আল মামুন,নিহত লিমার বাবা আব্দুল লতিফ, বড় ভাই লিমন মিয়া, ছোট ভাই লিটু মিয়া, কামরুল ইসলাম, আহসান হাবীব,রিমা রিক্তার,পলি বর্মন,আব্দুল আহাদ, শাহাদাৎ হোসেন সিপার, মোস্তাফিজুর রহমান লাভলু, হিমুন দেব বিশ্ব সহ অন্যরা।   গত ২৩ সেপ্টেম্বর লিমা স্থানীয় একটি কোচিং সেন্টারে যাওয়ার পথে স্থানীয় বখাটে শাকিল অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে ১০ অক্টোবর চট্রগ্রাম ইপিজেড এলাকার শাকিলের মামা সোলায়মান আলীর ভাড়া বাসা থেকে লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় শাকিল ও তার মামা সোলায়মান আলীকে গ্রেপ্তার করা হলেও আসামী হাফিজুর রহমান, হৃদয় মিয়া, শাকিলের বাবা শহিদুল ইসলাম সহ অন্যান্যদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করে বিচার দাবি জানান বক্তারা।

গাইবান্ধায় কিশোরী লিমা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ধর্মপুর পিএন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর মেধাবি ছাত্রী লিমা আক্তার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে হত্যাকান্ডের পর থেকেই দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল,সড়ক অবরোধ সহ মানববন্ধন করে আসছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোডে ঘন্টাব্যাপী এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন, নারী মুক্তি আন্দোলনের সদস্য সচিব নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী, শোভাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আবদুল্লাহ আল মামুন,নিহত লিমার বাবা আব্দুল লতিফ, বড় ভাই লিমন মিয়া, ছোট ভাই লিটু মিয়া, কামরুল ইসলাম, আহসান হাবীব,রিমা রিক্তার,পলি বর্মন,আব্দুল আহাদ, শাহাদাৎ হোসেন সিপার, মোস্তাফিজুর রহমান লাভলু, হিমুন দেব বিশ্ব সহ অন্যরা। গত ২৩ সেপ্টেম্বর লিমা স্থানীয় একটি কোচিং সেন্টারে যাওয়ার পথে স্থানীয় বখাটে শাকিল অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে ১০ অক্টোবর চট্রগ্রাম ইপিজেড এলাকার শাকিলের মামা সোলায়মান আলীর ভাড়া বাসা থেকে লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় শাকিল ও তার মামা সোলায়মান আলীকে গ্রেপ্তার করা হলেও আসামী হাফিজুর রহমান, হৃদয় মিয়া, শাকিলের বাবা শহিদুল ইসলাম সহ অন্যান্যদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করে বিচার দাবি জানান বক্তারা।


সারাদেশের সংবাদ