ঢাকা, ২৬ অক্টোবর মঙ্গলবার, ২০২১ || ১০ কার্তিক ১৪২৮
 নিউজ আপডেট:

বাগবাটি ফুলকোচাতে জোর পুর্বক বাড়ি ঘর ভাংচুর ও জমি দখলের চেষ্টা

ক্যাটাগরি : বাংলাদেশ প্রকাশিত: ৬৮৬ঘণ্টা পূর্বে


বাগবাটি ফুলকোচাতে জোর পুর্বক বাড়ি ঘর ভাংচুর ও জমি দখলের চেষ্টা

 

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ

সোমবার ভোর ৪টায় বাগবাটি ইউনিয়নের বাড়ান বাড়ী ফুলকোচা গ্রামে জোর পুর্বক বাড়ি ঘর ভাংচুর ও জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরে জমিনে গিয়ে জানা যায় মোঃ ইউসুফ আলীর ০৪ ছেলে ০২ মেয়ে, মেয়ে ০২টি বিবাহ দিয়েছে। ৪টি ছেলের মধ্যে দুই ছেলেকে এক বাড়ি ও অন্য দুই ছেলে অন্য জায়গায় বাড়ি করে দিয়েছে। ছোট ছেলে মিন্টু (৩২) ও মোমিন (৩৭) দুই ভাইয়ের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে বসত বাড়ির জায়গা নিয়ে দন্দ চলে আসছে। মিন্টুর স্ত্রী মোছাঃ মনোয়ারা খাতুন আমাদের প্রতিনিধিকে জানান দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের এই বসত বাড়ি নিয়ে মামলা মোকদ্দমা চলে আসছে। সোমবার আমি বাবার বাড়ি থাকায় লোক মুখে শুনতে পাই আমার বসত বাড়ী ভাংচুর ও লুটপাট করেছে আমার ভাসুর আব্দুল মোমিন গং। আমি ঘটনাস্থলে এসে দেখি আমার ঘর দরজা, বাড়ীর আসবাবপত্র সমস্ত কিছু ভাংচুর করে জায়গা দখল করে নিয়ে আছে। আমার ঘরে থাকা স্টীলের বাক্সের ভিতরে দেড় ভরি স্বর্ণের অলংকার, ১৩ মণ ধান, ঘর দরজা সারার জন্য ৫ ভান ঢেউ টিন, সেলিং ফ্যান সহ আমাদের মুদির দোকান ভাংচুর করে লুটপাট করে নিয়ে যায়। এই ব্যাপারে আব্দুল মোমিনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমার দলিলকৃত স¤পত্তির উপর ঘর তুলে আছে দীর্ঘ দিন ধরে। এই নিয়ে এলাকায় একাধিক বার শালিসি বৈঠক হয়েছে। কিন্তু আমার ভাই এবং ভাবি কোন কথায় কর্ণ পাত করেনি। তাই আমি ঘর তোলার জন্য আমার জায়গা ফাকা করে নিয়েছি। একই গ্রামের মোঃ রফিকুল ইসলাম পিতা মৃত: রিয়াজ উদ্দিন, আবুল কালাম, আ: সালাম তারা বলেন, এদের দুই ভাইয়ের মধ্যে দীর্ঘ ধরে ৮ শতক জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। আমরা অনেক চেষ্টা করেছি মিমাংসা করানোর জন্য। কিন্তু কেউ কথা শোনেনি। তবে আজকে যে ঘটনা ঘটেছে এটা খুবই দু:খ জনক ঘটনা। একজনের বাড়িতে এভাবে হামলা করা ঠিক হয়নি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সিরাজগঞ্জ সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
আরও সংবাদ পড়ুন
Search
গাইবান্ধায় কিশোরী লিমা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন  গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ধর্মপুর পিএন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর মেধাবি ছাত্রী লিমা আক্তার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে  হত্যাকান্ডের পর থেকেই দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল,সড়ক অবরোধ সহ মানববন্ধন  করে আসছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।    বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে  গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোডে ঘন্টাব্যাপী এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন, নারী মুক্তি আন্দোলনের সদস্য সচিব নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী, শোভাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আবদুল্লাহ আল মামুন,নিহত লিমার বাবা আব্দুল লতিফ, বড় ভাই লিমন মিয়া, ছোট ভাই লিটু মিয়া, কামরুল ইসলাম, আহসান হাবীব,রিমা রিক্তার,পলি বর্মন,আব্দুল আহাদ, শাহাদাৎ হোসেন সিপার, মোস্তাফিজুর রহমান লাভলু, হিমুন দেব বিশ্ব সহ অন্যরা।   গত ২৩ সেপ্টেম্বর লিমা স্থানীয় একটি কোচিং সেন্টারে যাওয়ার পথে স্থানীয় বখাটে শাকিল অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে ১০ অক্টোবর চট্রগ্রাম ইপিজেড এলাকার শাকিলের মামা সোলায়মান আলীর ভাড়া বাসা থেকে লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় শাকিল ও তার মামা সোলায়মান আলীকে গ্রেপ্তার করা হলেও আসামী হাফিজুর রহমান, হৃদয় মিয়া, শাকিলের বাবা শহিদুল ইসলাম সহ অন্যান্যদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করে বিচার দাবি জানান বক্তারা।

গাইবান্ধায় কিশোরী লিমা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ধর্মপুর পিএন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর মেধাবি ছাত্রী লিমা আক্তার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে হত্যাকান্ডের পর থেকেই দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল,সড়ক অবরোধ সহ মানববন্ধন করে আসছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোডে ঘন্টাব্যাপী এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন, নারী মুক্তি আন্দোলনের সদস্য সচিব নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী, শোভাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আবদুল্লাহ আল মামুন,নিহত লিমার বাবা আব্দুল লতিফ, বড় ভাই লিমন মিয়া, ছোট ভাই লিটু মিয়া, কামরুল ইসলাম, আহসান হাবীব,রিমা রিক্তার,পলি বর্মন,আব্দুল আহাদ, শাহাদাৎ হোসেন সিপার, মোস্তাফিজুর রহমান লাভলু, হিমুন দেব বিশ্ব সহ অন্যরা। গত ২৩ সেপ্টেম্বর লিমা স্থানীয় একটি কোচিং সেন্টারে যাওয়ার পথে স্থানীয় বখাটে শাকিল অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে ১০ অক্টোবর চট্রগ্রাম ইপিজেড এলাকার শাকিলের মামা সোলায়মান আলীর ভাড়া বাসা থেকে লিমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় শাকিল ও তার মামা সোলায়মান আলীকে গ্রেপ্তার করা হলেও আসামী হাফিজুর রহমান, হৃদয় মিয়া, শাকিলের বাবা শহিদুল ইসলাম সহ অন্যান্যদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করে বিচার দাবি জানান বক্তারা।


সারাদেশের সংবাদ