ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার, ২০২১ || ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭

কোহালিহীন ভারতের টি-টুয়েন্টি মেজাজে ৩২৮ রান তাড়া করে ব্রিসবেনে টেস্ট জয়

ক্যাটাগরি : খেলা প্রকাশিত: ৮৮০ঘণ্টা পূর্বে   ৩৬


কোহালিহীন ভারতের টি-টুয়েন্টি মেজাজে ৩২৮ রান তাড়া করে ব্রিসবেনে টেস্ট জয়

নতুন বল নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জমজমাট ম্যাচটা হলে আর সর্বোচ্চ ২০ ওভার। ২০ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার দরকার আরও ৭ উইকেট। ওদিকে ভারতের দরকার ১০০ রান।

চাইলেই একে আরেকটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বলে ধরে নেওয়া যায়। তবে ২০ ওভারে ১০০ রানকে টি-টোয়েন্টি তো বটেই, বর্তমানের ওয়ানডে ম্যাচ বলেও ধরা কঠিন। 

নাটক জমাতে মাত্র ২ বল দরকার হলো প্যাট কামিন্সের। গোটা সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার বোলিং জ্বালিয়ে মারা চেতেশ্বর পূজারা ২১১ বলের ইনিংসটা থামালেন। তবে কি জেতার আশা জাগল অস্ট্রেলিয়ার? নাকি আবারও শেষ চাপটা সয়ে নিয়ে টেস্ট ড্র করবে ভারত। কারণ, এই ড্রতেই যে বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিটা ধরে রাখতে পারবে ভারত।

ঋষভ পন্ত ওসব নিয়ে মাথা ঘামালে তো! ব্রিসবেনে অস্ট্রেলিয়ার ৩২ বছরের অপরাজিত থাকার রেকর্ড দুমড়েমুচড়ে দিয়ে এনে দিলেন ৩ উইকেটের জয়। ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে দেশে ফিরছে ভারত।

সমীকরণ যখন ৮১ বলে ৬৩, তখন মরিয়া অস্ট্রেলিয়া মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে আউট করতে রিভিউ নিয়ে নিল। কিন্তু হট স্পট কিংবা স্নিকো—কোনো কিছুই অস্ট্রেলিয়াকে আকাঙ্ক্ষিত কিছু দেখাতে পারল না।

আগারওয়াল, এতক্ষণ চমৎকার কিছু শট খেলা এই ব্যাটসম্যান কামিন্সের পরের বলেই কভার অঞ্চলে ধরা পরলেন শর্ট কভারে থাকা ওয়েডের কাছে। বেশ কিছুক্ষণ পর মনে হলো ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ারও তাহলে সুযোগ আছে। তাদের যে আর ৫ উইকেট দরকার।

কিন্তু জেতার জন্য উইকেট দরকার। সে উইকেট নেওয়ার জন্য যে বোলারও দরকার। অস্ট্রেলিয়া দলে যে কামিন্স ছাড়া অন্য কোনো বোলার উইকেট নিতে পারেন, সেটা বোঝার যে কোনো জো নেই। শুধু শুবমান গিলকে সেঞ্চুরি বঞ্চিত করেছিলেন লায়ন। সেই লায়ন শেষ ঘণ্টায় ভয়ংকর সব বাঁক আদায় করছিলেন কিন্তু উইকেট আদায় করা হচ্ছিল না। জশ হ্যাজলউড বা মিচেল স্টার্ক তো আজ রান আটকানোর কাজটাও করতে পারেননি। এর মধ্যেই ভারতের জয়ের লক্ষ্যটা ৫৩-তে নেমে এসেছে। আর ওভারের সংখ্যা নেমে এসেছে ১০-এ।

টানা দুই দারুণ ওভারে একটু চাপ বেড়েছিল। কিন্তু কামিন্সের দুই বলে দুটি ‘যা থাকে কপালে’ শটে ১০ রান তুলে নিলেন ওয়াশিংটন সুন্দর। 

পরের ৯ বলে ১৪ রান তুলে ম্যাচটা শেষ করে দিয়েছেন পন্ত ও সুন্দর। এরপরই ভাগ্য ফুরোল সুন্দরের। লায়নকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হলেন প্রথম ইনিংসের নায়ক। ভারতের দরকার ১০ রান, আর অস্ট্রেলিয়ার জয়ের স্বপ্ন যদি কেউ তখনো দেখে থাকেন, স্বাগতিকদের দরকার ৪ উইকেট।

৫ বলে প্রয়োজনীয় উইকেটসংখ্যা তিনে নামল। কিন্তু ততক্ষণে ভারতের রানও কমে এসেছে ৩-এ। এক বল বিরতি। পরের বলেই চার মেরেই ঝামেলা চুকালেন পন্ত। ৮৯ রানে অপরাজিত থেকে বীর বেশেই মাঠ ছাড়লেন পন্ত।

১৬ রানেই জীবন পেয়েছেন পন্ত। এই সিরিজে অস্ট্রেলিয়া দলে নিজের জায়গা যতটা সম্ভব দুর্বল করার লক্ষ্যেই যেন নেমেছেন টিম পেইন। দলের অধিনায়কের দুর্বল অধিনায়কত্ব, ব্যাটিংয়ে ভরসার অভাবের চেয়েও উইকেট রক্ষণে একের পর এক ভুল বেশি চোখে লেগেছে। 

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
আরও সংবাদ পড়ুন