ঢাকা, ২২ অক্টোবর শুক্রবার, ২০২১ || ৭ কার্তিক ১৪২৮
 নিউজ আপডেট:

কালীগঞ্জ পৌরসভার ২০২১-২২ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত প্রায় ৩০ কোটি টাকা বাজেট ঘোষণা।

ক্যাটাগরি : বাংলাদেশ প্রকাশিত: ৯৫০ঘণ্টা পূর্বে


কালীগঞ্জ পৌরসভার ২০২১-২২ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত প্রায় ৩০ কোটি টাকা  বাজেট ঘোষণা।

 

মেঃ লোকমান হোসেন পনির, 
কালীগঞ্জ ( গাজীপুর)  প্রতিনিধি। 

গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌরসভার ২০২১-২২ অর্থ বছরের জন্য ২৯ কোটি ৭৩ লাখ ৭৮ হাজার ৬৯৪ টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।


 শনিবার সন্ধ্যায় কুর্মিটোলা আর্মি গলফ ক্লাবের প্লাম ভিউ হোটেল এবং রেষ্টুরেন্টে বাজেট পরবর্তী এক আলোচনা সভায় এ তথ্য জানান কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র এস. এম রবীন হোসেন। গত বছরের তুলানায় এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে প্রায় ৮ কোটি টাকা বেশি ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে গত ৩০ জুন কালীগঞ্জ পৌরসভার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছিল।

 
বাজেটে রাস্তা ঘাট ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। এছাড়া মশক নিধন, স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও কল্যাণ মুলক নানা কর্মকান্ডে বরাদ্দ রাখা হয়েছে।
কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র এস. এম রবীন হোসেন বলেন, কালীগঞ্জ পৌরসভার এবার বড় বাজেট হিসেবে ২৯ কোটি ৭৩ লাখ ৭৮ হাজার ৬৯৪ টাকার প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। এতে রাস্তাঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নে আমরা গুরুত্ব দিয়েছি। সকল ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও পৌরসভার কর্মকর্তাদের ঐক্যবদ্ধ অংশগ্রহণে আমরা বাজেট বাস্তবায়ন করতে চাই। এজন্য জনগণ সহ সকলের সহযোগিতা চাচ্ছি।
জানা গেছে, এবারের বাজেটে সর্বমোট আয় ধরা হয়েছে ২৯ কোটি ৩৮ লাখ ৭৮ হাজার ৬৯৪ টাকা এবং মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২৮ কোটি ১৬ লাখ ৩৫ হাজার টাকা এবং বাজেটে উদ্ধৃত্ত রাখা হয়েছে ১ কোটি ২২ লাখ ৪৩ হাজার ৬৯৪ টাকা। গত অর্থবছরে (২০২০-২০২১) কালীগঞ্জ পৌরসভার বাজেট ছিল ২১ কোটি ৯১ লাখ ৮৩ হাজার ৯৪৪ টাকা। ওই বছর বাজেটে মোট ব্যয় ধরা হয়েছিল ২১ কোটি ১৪ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। এবার বাজেটে রাজস্ব খাতে আয় ৫ কোটি ৫৮ লাখ ১৭ হাজার ১৮২ টাকা, রাজস্ব ব্যয় ৫ কোটি ৩১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা, সরকারি অনুদান (উন্নয়ন ও প্রকল্প) আয় ২৩ কোটি ৮০ হাজার ৬১ লাখ ৫১২ টাকা এবং সরকারি অনুদানসহ উন্নয়ন ব্যয় ২২ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। মেয়রের বাড়ি ভাড়া বাবদ কোন ব্যয় নেই। তবে মেয়র ও কাউন্সিলরদের জন্য সম্মানীভাতা বাবদ ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ৪০ লাখ ৩৫ হাজার টাকা।
বাজেট– পরবর্তী


 আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসিবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি (এমপি)। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসিবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফী মেহেদী হাসান, কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন পলাশ, কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আবু বকর চৌধুরী, কালীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম, কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাকসুদ-উল আলম খান প্রমূখ।
আলোচনা সভায় কালীগঞ্জ পৌরসভার সকল ওয়ার্ড কাউন্সিলর, পৌরসভার সচিব মো. মিলন মিঞা, সহকারী প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবির, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাসুদুজ্জামান, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা দুলাল মোড়ল, উপসহকারী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলামসহ পৌরসভার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য: গত ১৬ জুন বিকেলে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে বিভাগীয় কমিশনার মো. খলিলুর রহমান কালীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত মেয়র ও ১২ কাউন্সিলরকে শপথ বাক্য পাঠ করান। এর আগে গত ২৮ ফেব্রæয়ারী কালীগঞ্জ পৌরসভায় উৎসব মুখর পরিবেশে প্রথম বারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে ভোট দিয়েছেন ভোটাররা। পৌরসভা নির্বাচনে চারজন মেয়র প্রার্থী, এ ছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৩ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।
নির্বাচনে এস. এম রবীন হোসেন পেয়েছেন ১৩ হাজার ৭৮৪ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মো. লুৎফুর রহমান পেয়েছেন ১০ হাজার ২২৫ ভোট। অন্যদিকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) মনোনীত প্রার্থী ফরিদ আহমেদ মৃধা (ধানের শীষ) পেয়েছেন ১ হাজার ২৯৭ ভোট এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. চাঁন মিয়া (হাতপাখা) পেয়েছেন ৫২৪ ভোট। কালীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৩৬ হাজার ৬৪০ জন। এদের মধ্যে এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৮ হাজার ৩২১ জন ও নারী ভোটার ১৮ হাজার ৩১৯ জন। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ১৭টি কেন্দ্র ও ১২০টি কক্ষে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) মোট ২৫ হাজার ৮৯০ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এর মধ্যে ৬০টি ভোট বাতিল হয়।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন:
আরও সংবাদ পড়ুন
Search
সিরাজগঞ্জে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক    মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতি নিধি ঃ   সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় অভিযান চালিয়ে দু’টি রিভলবার, গুলি ও দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১২ সদস্যরা। এ সময় ছিনতাই হওয়া একটি মাইক্রোবাসও উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে ও বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ি মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ডাকাত সদস্যরা হলো, সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার শৈলজানা গ্রামের মৃত মোকছেদ আলীর ছেলে মো. শফিকুল আলম তুহিন (৪৪), বগুড়া জেলা সদরের ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া এলাকার বেল্লাল হোসেন (৫৮), মৃত লব ফকিরের ছেলে বুধা ফকির (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত সেলিম প্রামাণিকের ছেলে মো. সোহাগ (২৯), বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার আটকোবিয়া গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে নান্নু মণ্ডল (৩২) এবং গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বেলাশী সরকার বাড়ী এলাকার ইসমাইল সরকার (৫৯)। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত রোববার (১৭ অক্টোবর) মেয়ে দেখার নাম করে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া নিয়ে বগুড়া থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় একদল ডাকাত। এরপর থেকে মাইক্রোবাসের চালক আমিরুলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হন গাড়ির মালিক। পরে তিনি র‌্যাব সদর দপ্তরের সহযোগিতা চান। এরপর র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে যে চালক আমিরুলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ওই গাড়ি দিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এরপর মঙ্গলবার রাতে শহরের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত চক্রের মূলহোতাসহ পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ী মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে আরও একজনকে আটক করা হয়। এ দু’টি অভিযানে আটক ডাকাতদের কাছ থেকে দু’টি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। সেই সঙ্গে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার আরও জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে এ ডাকাত চক্রটির দীর্ঘদিন ধরে পরিবহন ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে ডাকাতি করে আসছিল। তারা গাড়ি ছিনতাইয়ের পর এর নম্বর প্লেট, জিপিএস ট্র্যাকার ও গাড়ির রঙ পরিবর্তনের মাধ্যমে দখলে নেয়। পরে ওই গাড়ি নিয়ে ডাকাতি করে থাকে।

সিরাজগঞ্জে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতি নিধি ঃ সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় অভিযান চালিয়ে দু’টি রিভলবার, গুলি ও দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১২ সদস্যরা। এ সময় ছিনতাই হওয়া একটি মাইক্রোবাসও উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে ও বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ি মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ডাকাত সদস্যরা হলো, সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার শৈলজানা গ্রামের মৃত মোকছেদ আলীর ছেলে মো. শফিকুল আলম তুহিন (৪৪), বগুড়া জেলা সদরের ফুলবাড়ী মধ্যপাড়া এলাকার বেল্লাল হোসেন (৫৮), মৃত লব ফকিরের ছেলে বুধা ফকির (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত সেলিম প্রামাণিকের ছেলে মো. সোহাগ (২৯), বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার আটকোবিয়া গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে নান্নু মণ্ডল (৩২) এবং গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বেলাশী সরকার বাড়ী এলাকার ইসমাইল সরকার (৫৯)। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত রোববার (১৭ অক্টোবর) মেয়ে দেখার নাম করে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া নিয়ে বগুড়া থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় একদল ডাকাত। এরপর থেকে মাইক্রোবাসের চালক আমিরুলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হন গাড়ির মালিক। পরে তিনি র‌্যাব সদর দপ্তরের সহযোগিতা চান। এরপর র‌্যাব সদর দপ্তর গোয়েন্দা ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে যে চালক আমিরুলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ওই গাড়ি দিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এরপর মঙ্গলবার রাতে শহরের ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাত চক্রের মূলহোতাসহ পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে বগুড়া পৌর এলাকার ফুলবাড়ী মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে আরও একজনকে আটক করা হয়। এ দু’টি অভিযানে আটক ডাকাতদের কাছ থেকে দু’টি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। সেই সঙ্গে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার আরও জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধান ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে এ ডাকাত চক্রটির দীর্ঘদিন ধরে পরিবহন ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে ডাকাতি করে আসছিল। তারা গাড়ি ছিনতাইয়ের পর এর নম্বর প্লেট, জিপিএস ট্র্যাকার ও গাড়ির রঙ পরিবর্তনের মাধ্যমে দখলে নেয়। পরে ওই গাড়ি নিয়ে ডাকাতি করে থাকে।


সারাদেশের সংবাদ